সমাস কাকে বলে । কত প্রকার ও কি কি উদাহরণ সহ ব‍্যাখ‍্যা

সমাস কাকে বলে

সমাস কাকে বলে?

সমাস সংস্কৃত শব্দ। এর অর্থ সংক্ষেপ, মিলন, একাধিক পদের একপদীকরণ। অর্থ সম্বন্ধ আছে এমন একাধিক শব্দের একসঙ্গে যুক্ত হয়ে একটি নতুন শব্দ গঠনের প্রক্রিয়াকে সমাস বলে। যেমন – বিলাত হতে ফেরত – বিলাতফেরত।

ড. সুকুমার সেনের মতে, ” পরস্পর অন্বয় বিশিষ্ট দুই বা ততোধিক পদকে একপদে পরিণত হওয়াকে সমাস বলে। “

ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহর মতে, “পরস্পর অর্থ সঙ্গতি বিশিষ্ট দুই বা বহুপদকে একটি পদ করার নাম সমাস। “

সমাস কাকে বলে
সমাস

সমাস কয় প্রকার ও কি কি

বর্তমানে বাংলা ভাষার ব্যাকরণে নয়টি  সমাসের কথা উল্লেখ রয়েছে সেগুলি হল
1. দ্বন্দ্ব সমাস
2. কর্মধারয় সমাস
3. তৎপুরুষ সমাস
4. বহুব্রীহি সমাস
5. দ্বিগু সমাস
6. নিত্য সমাস
7. বাক্যাশ্রয়ী সমাস
8. অলুক সমাস
9. অব্যয়ীভাব সমাস

দ্বন্দ্ব

যে সমাসে প্রত্যেকটি সমস্যমান পদের অর্থের প্রাধান্য থাকে তাকে দ্বন্দ্ব সমাস বলে। এ সমাসে পর্বপদ ও পরপদের সম্বন্ধ বুঝানোর জন্য ব্যাসবাক্যে এবং, ও, আর এ তিনটি অব্যয় পদ ব্যবহৃত হয়। যেমন – ভাই ও বোন = ভাইবোন, মাতা ও পিতা = মাতাপিতা।

দ্বন্দ্ব সমাসের প্রকারভেদ / শ্রেণীবিভাগ

দ্বন্দ্ব সমাস নানা প্রকার হতে পারে। কয়েকটি হলো –

  • মিলনার্থক দ্বন্দ্ব (মাসি ও পিসি = মাসি-পিসি)
  • সমার্থক দ্বন্দ্ব (হাট ও বাজার = হাট- বাজার)
  • বিরোধার্থক দ্বন্দ্ব ( দা ও কুমড়া = দা -কুমড়া)
  • অলুক দ্বন্দ্ব ( দেশে ও বিদেশে = দেশে-বিদেশে)
  • ইত্যাদি অর্থে দ্বন্দ্ব (কাপড় ও চোপড় = কাপড়-চোপড়)
  • বহুপদী দ্বন্দ্ব (বই, খাতা ও কলম = বই- খাতা- কলম)

কর্মধারয় সমাস কাকে বলে ও উদাহরণ

বিশেষ্য পদের সাথে বিশেষণ বা বিশেষণ পদের সাথে বিশেষ্য পদের যে সমাস হয় এবং সমস্ত পদে পরপদের অর্থের প্রাধান্য থাকে তাকে কর্মধারয় সমাস বলে।

কর্মধারয় সমাসের প্রকারভেদ / শ্রেণীবিভাগ

কর্মধারয় কয়েক প্রকার। যেমন –

  • মধ্যপদলোপী কর্মধারয় (সিংহ চিহ্নিত আসন – সিংহাসন)
  • উপমান কর্মধারয়(তুষারের ন্যায় শুভ্র- তুষারশুভ্র)
  • উপমিত কর্মধারায় (মুখ চন্দ্রের ন্যায় – চন্দ্রমুখ)
  • রূপক কর্মধারয় ( মন রূপ মাঝি – মনমাঝি)

1.সাধারণ কর্মধারয় সমাস কাকে বলে : যে কর্মধারয় সমাসে পরপদ বিশেষ্য ও পূর্বপদ বিশেষণ অথবা পূর্বপদ ও পরপদ উভয়ই বিশেষণ বা বিশেষ্য, তাকে সাধারণ কর্মধারয় সমাস বলে। উদাহরণ – মহারাজা = মহান যে রাজা, সজ্জন = সংযে ইতি ।

সে ব্যাসবাক্যের মধ্যপদটি সমস্তপদে লোপ পায়, তাকে মধ্যপদলোপী কর্মধারয় সমাস বলে। উদাহরণ – সিংহাসন = সিংহ চিহ্নিত আসন, বরযাত্রী = বরের অনুগামী যাত্রী।

3. উপমান কর্মধারয় সমাস কাকে বলে: যে কর্মধারয় সমাসে উপমানের সঙ্গে সাধারণ বর্ণবাচক পদের সমাস হয়, তাকে উপমান কর্মধারয় সমাস বলে। উদাহরণ – তুষারশুভ্র = তুষারের ন্যায় শুভ্র, ঘনশ্যাম = ঘনের ন্যায় শ্যাম ।

4. উপমিত কর্মধারয় সমাস কাকে বলে: যে কর্মধারয় সমাসে উপমেয়ের সঙ্গে উপমানের সমাস হয়, কিন্তু সাধারণ ধর্মের উল্লেখ থাকে না, তাকে উপমিত কর্মধারয় সমাস বলে। উদাহরণ – পুরুষসিংহ = পুরুষ সিংহের ন্যায়,  ফুলবাবু = বাবু ফুলের মতো ।

5. রূপক কর্মধারয় সমাস: যে কর্মধারয় সমাসে উপমান ও উপমেয়ের মধ্যে অভেদ কল্পনা করা হয়, তাকে রূপক কর্মধারয় সমাস বলে। উদাহরণ – সুখসাগর = সুখ রূপ সাগর,  জ্ঞানালোক = জ্ঞান রূপ আলোক ।

তৎপুরুষ

পূর্বপদের বিভক্তির লোপে যে সমাস হয় এবং যে সমাসে পরপদের অর্থ প্রধানভাবে বোঝায়, তাকে তৎপুরুষ সমাস বলে। যেমন – বিপদকে আপন্ন – বিপদাপন্ন, শ্রম দ্বারা লব্ধ – শ্রমলব্ধ

তৎপুরুষ সমাসের প্রকারভেদ / শ্রেণীবিভাগ

তৎপুরুষ সমাস ৯ প্রকার। এগুলো হলো –

  • দ্বিতীয়া তৎপুরুষ (চিরকাল ব্যাপিয়া সুখী – চিরসুখী)
  • তৃতীয়া তৎপুরুষ (মধু দিয়ে মাখা – মধুমাখা)
  • চতুর্থী তৎপুরুষ (গুরুকে ভক্তি – গুরুভক্তি)
  • পঞ্চমী তৎপুরুষ (কারা থেকে মুক্ত – কারামুক্ত)
  • ষষ্ঠী তৎপুরুষ (রাজার পুত্র – রাজপুত্র)
  • সপ্তমী তৎপুরুষ (গাছে পাকা – গাছপাকা)
  • নঞ্ তৎপুরুষ (অ (নয়) চেনা – অচেনা)
  • উপপদ তৎপুরুষ (পঙ্কে জন্মে যা – পঙ্কজ)
  • অলুক তৎপুরুষ (গায়ে পড়া – গায়েপড়া)

1.কর্ম তৎপুরুষ  : যে তৎপুরুষ সমাসে পূর্বপদে কর্মকারকের বিভক্তির চিহ্ন সর্বপদে লোপ পায়, তাই হল কর্ম তৎপুরুষ। উদাহরণ- ঘরমোছা = ঘরকে মোছা, লোকহাসানো = লোককে হাসানো।

2. ব্যাপ্তি তৎপুরুষ : যে তৎপুরুষ সমাসে স্থান বা কালের ব্যাপ্তি বোঝায়, তাকে ব্যাপ্তি তৎপুরুষ সমাস বলে। উদাহরণ – চিরসুখী = চিরকাল ব্যাপিয়া সুখী, আকন্ঠ = কন্ঠ পর্যন্ত।

3.করণ তৎপুরুষ : যে তৎপুরুষ সমাসে পূর্বপদে করণকারকের বিভক্তি চিহ্ন থাকলেও সবপদে তা বিলোপ পায়, তা হল করণ তৎপুরুষ সমাস । উদাহরণ- মধুমাখা = মধু দ্বারা মাখা, শ্রমলব্ধ = শ্রম দ্বারা লব্ধ ।

4. নিমিত্ত তৎপুরুষ : যে তৎপুরুষ সমাসে পূর্বপদে নিমিত্ত কারকের চিহ্ন সবপদে লোপ পায়, তাকে নিমিত্ত তৎপুরুষ সমাস বলা হয় । উদাহরণ- শান্তিনিকেতন = শান্তির জন্য নিকেতন, রান্নাঘর = রান্নার নিমিত্ত ঘর।

5. অপাদান তৎপুরুষ : যে তৎপুরুষ সমাসে পূর্বপদে অপাদান কারকের চিহ্ন সর্বপদে লোপ পায় তাকে বলা হয় অপাদান তৎপুরুষ সমাস। উদাহরণ- জলাতঙ্ক = জল হইতে আতঙ্ক, স্নাতকোত্তর = স্নাতক হইতে উত্তর।

6. অধিকরণ তৎপুরুষ: যে তৎপুরুষ সমাসে পূর্বপদে অধিকরণ কারকের বিভক্তি চিহ্ন সর্বপদে লোপ পায় তাকে বলা হয় অধিকরণ তৎপুরুষ। উদাহরণ- গাছপাকা = গাছে পাকা, রাতকানা = রাতে কানা, সত্যা= সত্যে আগ্রহ।

7. সম্বন্ধ তৎপুরুষ: যে তৎপুরুষ সমাসে পূর্বপদে সমৃদ্ধ পাদের চিহ্ন সর্বপদে লোপনীয় তাকে সম্বন্ধ তৎপুরুষ সমাস বলা হয়। উদাহরণ-  রাজমিস্ত্রি = মিস্ত্রিদের রাজা, দলপতি = দলের পতি।

 8.উপপদ তৎপুরুষ: উপপাদের সঙ্গে কুদস্তপদের মিলনে যে সমাস গঠিত হয়, তাকে উপপদ তৎপুরুষ সমাস বলে। বৃদন্তপদের পূর্ববর্তী পদকে উপপদ বলে। উদাহরণ- জলদ = জল দেয় যে, দিশাহারা = দিশা হারিয়েছে যে।

9.না-তৎপুরুষ: যে তৎপুরুষ সমাসে পূর্বপদে না-বাচক শব্দ থাকে এবং পরবর্তীপদে বিশেষ্য বা বিশেষণ হয়, তাকে না-তৎপুরুষ সমাস বলা হয়। উদাহরণ- অমঙ্গল = অ (নয়) মঙ্গল,  অনামী = অ (নয়) নামী।

10. উপসর্গ তৎপুরুষ: যে তৎপুরুষ সমাসে পূর্বপদে উপসর্গ সংযুক্ত থাকে এবং পরপদ বিশেষ্য হয় তাকে উপসর্গ তৎপুরুষ সমাস বলে। উদাহরণ-  উপমুখ্যমন্ত্রী = মুখ্যমন্ত্রীর সদৃশ, প্রতিবাদ = বাদের বিপরীত।

11.অলোপ তৎপুরুষ : যে তৎপুরুষ সমাসে পূর্বপদে বিভক্তির বিলোপ হয় না এবং পরপদের অর্থ প্রধান হয়, তাকে অলোপ তৎপুরুষ সমাস বলে। উদাহরণ- খেলার মাঠ = খেলার মাঠ, ভোরের পাখি = ভোরের পাখি।

অভ্যয়ীভাব

যে সমাসে পূর্বপদে একটি অব্যয় এবং পরপদে একটি বিশেষ্য থাকে এবং অর্থের দিক থেকে পূর্বপদ অর্থাৎ, অব্যয়ের অর্থই প্রাধান্য পায়, তাকে অব্যয়ীভাব সমাস বলে। যেমন – কন্ঠের সমীপে – উপকন্ঠ, দিন দিন – প্রতিদিন।

বহুব্রীহি

যে সমাসে সমস্যমান পদগুলোর কোনটির অর্থ না বুঝিয়ে, অন্য কোন পদকে বোঝায়, তাকে বহুব্রীহি সমাস বলে। যেমন – সহ উদর যার – সহোদর, সমান বর্ণ যার – সমবর্ণ।

বহুব্রীহি সমাসের প্রকারভেদ / শ্রেণীবিভাগ

বহুব্রীহি সমাস ৮ প্রকার। যথাঃ-

  • সমানাধিকরণ বহুব্রীহি (খোশ মেজাজ যার – খোশমেজাজ)
  • ব্যাধিকরণ বহুব্রীহি (দু কান কাটা যার – দু কানকাটা)
  • ব্যতিহার বহুব্রীহি (কানে কানে যে কথা – কানাকানি)
  • নঞ্ বহুব্রীহি (ন (নাই) জ্ঞান যার – অজ্ঞান)
  • মধ্যপদলোপী বহুব্রীহি (গায়ে হলুদ দেওয়া হয় যে অনুষ্ঠানে – গায়ে হলুদ)
  • প্রত্যয়ান্ত বহুব্রীহি (ঘরের দিকে মুখ যার – ঘরমুখো)
  • অলুক বহুব্রীহি (মাথায় পাগড়ি যার – মাথায়পাগড়ি)
  • সংখ্যাবাচক বহুব্রীহি (দশ গজ পরিমাণ যার – দশগজি)

1. ব্যাধিকরণ বহুব্রীহি : যে বহুব্রীহি সমাসে পূর্বপদ বিশেষণ ও পরপদ বিশেষ্য হয় এবং এদের কোনো একটি পদ ‘এ’ বা ‘তে’ বিভক্তি যুক্ত হয়, তাকে ব্যাধিকরণ বহুব্রীহি সমাস বলে। উদাহরণ- পদ্মনাভ = পদ্ম নাভিতে যাঁর, পাদপদ্ম = পদ্ম পড়ে যাঁর।

2.সমানাধিকরণ বহুব্রীহি: যে বহুব্রীহি সমাসে পূর্বপদ বিশেষণ ও পরপদ বিশেষ্য হয়, তাকে সমানাধিকরণ বহুব্রীহি সমাস বলে। উদাহরণ-বিশালাক্ষী = বিশাল অভি যার, সুগন্ধি = সুগন্ধ যার।

3.মধ্যপদলোপী বহুব্রীহি: যে বহুব্রীহি সমাসে ব্যাসবাক্যের ব্যাখ্যামূলক মধ্যবর্তী পদটি লোপ হয়ে যায়, তাকে মধ্যপদলোপী বহুব্রীহি সমাস বলে। উদাহরণ-  কপোতাক্ষ = কপোতের অক্ষির মতো অক্ষি যার, মৃগনয়না = যুগের নয়নের মতো নয়ন যার।

4.ব্যতিহার বহুব্রীহি: যে বহুরীহি সমাসে একই শব্দের পুনরুক্তি দ্বারা পরস্পর কাজ করা বোঝায়, তাকে ব্যতিহার বহুব্রীহি সমাস বলে। উদাহরণ- মারামারি = পরস্পরকে মারা, কোলাকুলি = কোলে কোলে যে আলিঙ্গন।

5.সদার্থক বহুব্রীহি: যে বহুব্রীহি সমাসে পূর্বপদ সমাসবদ্ধ পদের পূর্বে সহিত অর্থ বোঝানোর জন্য ‘স’ শব্দটি পূর্বে বসে তাকে সদার্থক বহুব্রীহি সমাস বলে। উদাহরণ- সবান্ধব = বান্ধবের সহিত বর্তমান, সার্থক = অর্থের সহিত বর্তমান।

6.নঞর্থক বহুব্রীহি: যে বহুব্রীহি সমাসে পূর্বপদ নঞর্থক অর্থাৎ না -বাচক হয়, তাকে নর্থক বহুব্রীহি সমাস বলে। উদাহরণ- অজ্ঞান= অ (নাই) জ্ঞান যার, নিরাশ = নি (নাই) আশ যার।

গুরুত্বপূর্ণ ১৫০ টি সমাস

১. ‘হাসাহাসি’ কোন সমাস?
ক) ব্যতিহার বহুব্রীহি
খ) ব্যধিকরণ বহুব্রীহি
গ) নঞ্ বহুব্রীহি
ঘ) মধ্যপদলোপী বহুব্রীহি
সঠিক উত্তর: (ক)
২. ‘প্রগতি’ কোন সমাসের উদাহরণ?
ক) নিত্য সমাস
খ) অব্যয়ীভাব সমাস
গ) অলুক সমাস
ঘ) প্রাদি সমাস
সঠিক উত্তর: (ঘ)
৩. কোনটি পঞ্চমী তৎপুরুষ সমাস?
ক) শ্রমলব্ধ
খ) জলমগ্ন
গ) ছাত্রবৃন্দ
ঘ) ঋণমুক্ত
সঠিক উত্তর: (ক)
৪. ‘কাজলকালো’ – এর সঠিক ব্যাসবাক্য কোনটি?
ক) কাজলের ন্যায় কালো
খ) কাজল রূপ কালো
গ) কাজল ও কালো
ঘ) কালো যে কাজল
সঠিক উত্তর: (ক)
৫. “জীবননাশের আশঙ্কায় যে বীমা = জীবনবীমা” কোন কর্মধারয় সমাস?
ক) উপমান
খ) উপমিত
গ) রূপক
ঘ) মধ্যপদলোপী
সঠিক উত্তর: (ঘ)
৬. কয়টি সমাসের সাথে ‘অলুক’ কথাটি যুক্ত আছে?
ক) ৩
খ) ২
গ) ৪
ঘ) ৬
সঠিক উত্তর: (ক)
৭. ‘জলচর’ কোন তৎপুরুষ সমাস?
ক) সপ্তমী
খ) পঞ্চমী
গ) উপপদ
ঘ) তৃতীয়া
সঠিক উত্তর: (ক)
৮. ‘উপনদী’ সমস্তপদের ‘উপ’ কী অর্থে ব্যবহৃত হয়েছে?
ক) ক্ষুদ্র
খ) অভাব
গ) সামীপ্য
ঘ) সাদৃশ্য
সঠিক উত্তর: (ক)
৯. ‘রূপক কর্মধারয়’ – এর সমস্তপদ কোনটি?
ক) মহাপুরুষ
খ) ঘনশ্যাম
গ) বিষাদসিন্ধু
ঘ) তুষারশুভ্র
সঠিক উত্তর: (গ)
১০. ‘পঙ্কজ’ কোন তৎপুরুষ নিষ্পন্ন শব্দ?
ক) অলুক
খ) উপপদ
গ) সপ্তমী
ঘ) দ্বিতীয়া
সঠিক উত্তর: (ক)
১১. কোন সমাসবদ্ধ পদটি দ্বিগু সমাসের অন্তর্ভুক্ত?
ক) দেশান্তর
খ) গ্রামান্তর
গ) তেপান্তর
ঘ) লোকান্তর
সঠিক উত্তর: (গ)
১২. সমাস কত প্রকার?
ক) সাত প্রকার
খ) ছয় প্রকার
গ) পাঁচ প্রকার
ঘ) তিন প্রকার
সঠিক উত্তর: (খ)
১৩. ‘চিরসুখী’ – এর ব্যাসবাক্য কোনটি?
ক) চিরকাল ব্যাপিয়া সুখী
খ) চিরকাল ব্যাপিয়া সুখ
গ) চিরদিনের জন্য সুখী
ঘ) চিরদিন ধরে সুখী
সঠিক উত্তর: (ক)
১৪. কর্মধারয় সমাসে কোন পদ প্রধান?
ক) পূর্বপদ
খ) উভয়পদ
গ) অন্যপদ
ঘ) পরপদ
সঠিক উত্তর: (ঘ)
১৫. অর্থ প্রাধান্যের দিক থেকে কর্মধারয় – এর বিপরীত সমাস কোনটি?
ক) তৎপুরুষ
খ) দ্বন্ধ
গ) অব্যয়ীভাব
ঘ) বহুব্রীহি
সঠিক উত্তর: (গ)
১৬. উপমান কর্মধারয় সমাসের উদাহরণ কোনটি?
ক) মুখচন্দ্র
খ) ক্রোধানল
গ) কাজলকালো
ঘ) চিরসুখী
সঠিক উত্তর: (গ)
১৭. দ্বন্ধ সমাসের বিপরীত অর্থ প্রাধান্য সমাস কোনটি?
ক) কর্মধারয় সমাস
খ) বহুব্রীহি সমাস
গ) দ্বিগু সমাস
ঘ) তৎপুরুষ সমাস
সঠিক উত্তর: (খ)
১৮. ‘কানে কানে যে কথা = কানাকানি’ – এটি কোন সমাসের উদাহরণ?
ক) অব্যয়ীভাব
খ) সপ্তমী তৎপুরুষ
গ) অলুক বহুব্রীহি
ঘ) ব্যতিহার বহুব্রীতি
সঠিক উত্তর: (ঘ)
১৯. ‘চাঁদমুখ’ – এর ব্যাসবাক্য কোনটি?
ক) চাঁদ মুখ যার
খ) চাঁদের ন্যায় মুখ
গ) মুখের ন্যায় চাঁদ
ঘ) চাঁদ যে মুখ
সঠিক উত্তর: (খ)
২০. দ্বিগু সমাস নিষ্পন্ন পদটি কোন পদ হয়?
ক) বিশেষ্য
খ) বিশেষণ
গ) সর্বনাম
ঘ) কৃদন্ত
সঠিক উত্তর: (ক)
২১. ‘আশীবিষ’ – কোন সমাস?
ক) সমানাধিকরণ বহুব্রীহি
খ) ব্যতিহার বহুব্রীহি
গ) নঞ্ বহুব্রীহি
ঘ) ব্যাধিকরণ বহুব্রীহি
সঠিক উত্তর: (ঘ)
২২. কোনটি উপমান কর্মধারয় সমাসের উদাহরণ?
ক) সিংহাসন
খ) অরুণরাঙা
গ) বিষাদসিন্ধু
ঘ) মুখচন্দ্র
সঠিক উত্তর: (খ)
২৩. সমাসের রীতি বাংলায় এসেছে কোন ভাষা থেকে?
ক) হিন্দি
খ) সংস্কৃত
গ) প্রাকৃত
ঘ) ফারসি
সঠিক উত্তর: (খ)
২৪. মধ্যপদলোপী কর্মধারয় সমাস কোনটি?
ক) পলান্ন
খ) ঘনশ্যাম
গ) নরাধম
ঘ) খেচর
সঠিক উত্তর: (ক)
২৫. নিপাতনে সিদ্ধ বহুব্রীহি সমাসের উদাহরণ কোনটি?
ক) দ্বিপ
খ) দীপ
গ) দ্বীপ
ঘ) দিপ
সঠিক উত্তর: (গ)
২৬. কোনটিতে উপমান ও উপমেয়ের মধ্যে অভিন্নতা কল্পনা করা হয়?
ক) উপমান কর্মধারয়
খ) উপমিত কর্মধারয়
গ) রূপক কর্মধারয়
ঘ) মধ্যপদলোপী কর্মধারয়
সঠিক উত্তর: (গ)
২৭. কোন উদাহরণটি অলুক তৎপুরুষ সমাসের?
ক) গায়ে পড়া
খ) চা-বাগান
গ) খাঁচা ছাড়া
ঘ) মাল গুদাম
সঠিক উত্তর: (ক)
২৮. ‘ফুলকুমারী’ সমস্তপদটির সঠিক ব্যাসবাক্য কোনটি?
ক) ফুলের ন্যায় কুমারী
খ) কুমারী ফুলের ন্যায়
গ) ফুলের ন্যায় সুন্দর কুমারী
ঘ) ফুলের কুমারী
সঠিক উত্তর: (ক)
২৯. ‘কমলাক্ষ’ – এর সঠিক ব্যাসবাক্য হলো-
ক) কমল অক্ষির ন্যায়
খ) কমল অক্ষের ন্যায়
গ) কমলের ন্যায় অক্ষি যার
ঘ) কমলের ন্যায় অক্ষ যার
সঠিক উত্তর: (গ)
৩০. ‘নীল যে পদ্ম = নীলপদ্ম’ কোন সমাস?
ক) দ্বিগু সমাস
খ) প্রাদি সমাস
গ) বহুব্রীহি সমাস
ঘ) কর্মধারয় সমাস
সঠিক উত্তর: (ঘ)
৩১. তৃতীয়া তৎপুরুষ সমাসের ‘সমস্তপদ’ কোনটি?
ক) গা-ঢাকা
খ) তালকানা
গ) মনগড়া
ঘ) দেশসেবা
সঠিক উত্তর: (গ)
৩২. রূপক কর্মধারয় সমাসের ব্যাসবাক্যে কোনটি থাকে?
ক) ও
খ) এ
গ) ই
ঘ) ন্যায়
সঠিক উত্তর: (ঘ)
৩৩. ‘হাট-বাজার’ কোন অর্থে দ্বন্ধ সমাস?
ক) মিলনার্থে
খ) বিরোধার্থে
গ) বিপরীতার্থে
ঘ) সমার্থে
সঠিক উত্তর: (ঘ)
৩৪. সমাস সাধিত পদ কোনটি?
ক) চাষী
খ) বোনাই
গ) মানব
ঘ) দম্পতি
সঠিক উত্তর: (ঘ)
৩৫. ‘পঞ্চনদ’ সমস্তপদটির সঠিক ব্যাসবাক্য কোনটি?
ক) পঞ্চ ও নদ
খ) পঞ্চ নামক নদ
গ) পঞ্চ নদের সমাহার
ঘ) পঞ্চ নদীর সমাহার
সঠিক উত্তর: (ঘ)
৩৬. দ্বিগু সমাসকে অনেক ব্যাকরণবিদ কোন সমাসের অন্তর্ভুক্ত করেছেন?
ক) তৎপুরুষ
খ) দ্বন্ধ
গ) কর্মধারয়
ঘ) অব্যয়ীভাব
সঠিক উত্তর: (গ)
৩৭. ‘মহারাজ’ – এর সঠিক ব্যাসবাক্য কোনটি?
ক) রাজা যে মহৎ
খ) মহান যে রাজা
গ) মহতের রাজা
ঘ) মহা যে রাজা
সঠিক উত্তর: (খ)
৩৮. ‘চন্দ্রমুখ’ – শব্দের ব্যাসবাক্য কোনটি?
ক) চন্দ্রের ন্যায় মুখ
খ) চন্দ্র রূপ মুখ
গ) মুখ চন্দ্রের ন্যায়
ঘ) মুখ ও চন্দ্র
সঠিক উত্তর: (গ)
৩৯. ‘মন মাঝি’ – এর সঠিক ব্যাসবাক্য কোনটি?
ক) মন যে মাঝি
খ) মন মাঝির ন্যায়
গ) মনরূপ মাঝি
ঘ) মন ও মাঝি
সঠিক উত্তর: (গ)
৪০. বহুব্রীহি সমাসের পূর্বপদ এবং পরপদ কোনোটিই যদি বিশেষণ না হয় তবে তাকে কী বলে?
ক) সমানাধিকরণ বহুব্রীহি
খ) ব্যধিকরণ বহুব্রীহি
গ) ব্যাতিহার বহুব্রীহি
ঘ) প্রত্যয়ান্ত বহুব্রীহি
সঠিক উত্তর: (খ)
৪১. কোনটি খাঁটি বাংলা কর্মধারয় সমাসের উদাহরণ?
ক) সিংহাসন
খ) মনমাঝি
গ) নরাধম
ঘ) অনল
সঠিক উত্তর: (গ)
৪২. দিল্লীশ্বর কিসের উদাহরণ?
ক) কর্মধারয়
খ) তৎপুরুষ
গ) অলুকদ্বন্ধ
ঘ) দ্বন্ধ
সঠিক উত্তর: (খ)
৪৩. পরবর্তী ক্রিয়ামূলের সঙ্গে কৃৎপ্রত্যয় যুক্ত হয়ে কোন সমাস গঠিত হয়?
ক) তৎপুরুষ
খ) উপপদ তৎপুরুষ
গ) উপমিত কর্মধারয়
ঘ) উপমান কর্মধারয়
সঠিক উত্তর: (খ)
৪৪. সাধারণ ধর্মবাচক পদের সাথে উপমানবাচক পদের যে সমাস হয় তাকে কোন কর্মধারয় বলে?
ক) সাধারণ কর্মধারয়
খ) রূপক কর্মধারয়
গ) উপমিত কর্মধারয়
ঘ) উপমান কর্মধারয়
সঠিক উত্তর: (ঘ)
৪৫. তৎপুরুষ সমাস কয় প্রকার?
ক) আট
খ) নয়
গ) দশ
ঘ) এগার
সঠিক উত্তর: (খ)
৪৬. কোনটি সমার্থক দ্বন্ধ সমাস?
ক) দুধে-ভাতে
খ) কাগজ-পত্র
গ) ভাই-বোন
ঘ) জমা-খরচ
সঠিক উত্তর: (খ)
৪৭. ‘বিশ্ববিখ্যাত’ সমস্তপদটি কোন সমাস নির্দেশ করে?
ক) মধ্যপদলোপী বহুব্রীহি
খ) সপ্তমী তৎপুরুষ
গ) চতুর্থী তৎপুরুষ
ঘ) উপমান কর্মধারয়
সঠিক উত্তর: (খ)
৪৮. কর্মধারয় সমাস নয় কোনটি?
ক) কদাচার
খ) মহারাজ
গ) মুখচন্দ্র
ঘ) মধুমাখা
সঠিক উত্তর: (ঘ)
৪৯. পূর্বপদের প্রাধান্য থাকে কোন সমাসে?
ক) দ্বন্ধ সমাসে
খ) বহুব্রীহি সমাসে
গ) কর্মধারয় সমাসে
ঘ) অব্যয়ীভাব সমাসে
সঠিক উত্তর: (ঘ)
৫০. যে সমাসে প্রত্যেকটি সমস্যমান পদের অর্থের প্রাধান্য থাকে তাকে কী বলে?
ক) দ্বন্ধ সমাস
খ) কর্মধারয়সমাস
গ) দ্বিগু সমাস
ঘ) বহুব্রীহি সমাস
সঠিক উত্তর: (ক)
৫১. কোনটিতে পূর্বপদের অর্থ প্রাধান্য পায়?
ক) দ্বিগু সমাস
খ) অব্যয়ীভাব সমাস
গ) পঞ্চ নদের সমাহার
ঘ) পঞ্চ নদীর সমাহার
সঠিক উত্তর: (ঘ)
৫২. ‘হংসডিম্ব’ – এর সঠিক ব্যাসবাক্য কোনটি?
ক) হংসের ডিম্ব
খ) হংস ও ডিম্ব
গ) হংস হতে যে ডিম্ব
ঘ) হংসীর ডিম্ব
সঠিক উত্তর: (খ)
৫৩. নিচের কোনটি উপমিত কর্মধারয় সমাসের উদাহরণ?
ক) ঘনশ্যাম
খ) স্নেহনীড়
গ) কুসুমকোমল
ঘ) করপল্লব
সঠিক উত্তর: (ঘ)
৫৪. ‘ঈষৎ’ অর্থে অব্যয়ীভাব সমাস কোনটি?
ক) আগাছা
খ) আজীবন
গ) আগমন
ঘ) আরক্তিম
সঠিক উত্তর: (ঘ)
৫৫. ‘অন্তরীপ’ কোন বহুব্রীহি সমাসের সমস্ত পদ?
ক) প্রত্যয়ান্ত বহুব্রীহি
খ) নিপাতনে সিদ্ধ বহুব্রীহি
গ) ব্যধিকরণ বহুব্রীহি
ঘ) সমানাধিকরণ বহুব্রীহি
সঠিক উত্তর: (খ)
৫৬. ‘উদ্বেল’ কী অর্থে অব্যয়ীভাব সমাস?
ক) আবেগ অর্থে
খ) অতিক্রম অর্থে
গ) বীপ্সা অর্থে
ঘ) সামীপ্য অর্থে
সঠিক উত্তর: (খ)
৫৭. ব্যাসবাক্যের অপর নাম কী?
ক) পূর্ণ বাক্য
খ) বিগ্রহ বাক্য
গ) বিস্তৃত বাক্য
ঘ) নতুন বাক্য
সঠিক উত্তর: (খ)
৫৮. ‘বিদ্যাহীন’ শব্দটি কোন ধরনের সমাস হবে?
ক) তৃতীয়া তৎপুরুষ
খ) পঞ্চমীতৎপুরুষ
গ) সমানাধিকরণ তৎপুরুষ
ঘ) ব্যাধিকরণ বহুব্রীহি
সঠিক উত্তর: (ক)
৫৯. কোনটি ষষ্ঠী তৎপুরুষ সমাসের উদাহরণ?
ক) রাজপুত্র
খ) অভাব
গ) রান্নাঘর
ঘ) প্রাণপ্রিয়
সঠিক উত্তর: (খ)
৬০. সত্য বলে যে = সত্যবাদী – এটি কোন সমাসের অন্তর্গত?
ক) উপপদ তৎপুরুষ
খ) প্রত্যয়ান্ত বহুব্রীহি
গ) অলুক তৎপুরুষ
ঘ) দ্বিগু
সঠিক উত্তর: (ক)
৬১. নিচের কোনটি ‘বিপরীতার্থক দ্বন্ধ’?
ক) অহি-নকুল
খ) জমা-খরচ
গ) মাসি-পিসি
ঘ) হাট-বাজার
সঠিক উত্তর: (খ)
৬২. উপকরণবাচক বিশেষ্য পদ পূর্বপদে বসে কোন তৎপুরুষ সমাস হয়?
ক) ৩য়া
খ) ২য়া
গ) ৪র্থী
ঘ) ৫মী
সঠিক উত্তর: (ক)
৬৩. কোনটি নিত্য সমাস?
ক) অনুতাপ
খ) দর্শনমাত্র
গ) উপকূল
ঘ) পীতাম্বর
সঠিক উত্তর: (খ)
৬৪. ‘হাট-বাজার’ কোন সমাস?
ক) তৎপুরুষ
খ) কর্মধারয়
গ) বহুব্রীহি
ঘ) দ্বন্ধ
সঠিক উত্তর: (ঘ)
৬৫. কোনটি দ্বন্ধ সমাস?
ক) বেতাল
খ) মাতা-পিতা
গ) রাতকানা
ঘ) অঘাট
সঠিক উত্তর: (খ)
৬৬. পরপদে রাজি, গ্রাম, বৃন্দ, যূথ প্রভৃতি কোন সমাসে আছে?
ক) পঞ্চমী তৎপুরুষ
খ) ষষ্ঠী তৎপুরুষ
গ) তৃতীয়া তৎপুরুষ
ঘ) অলুক তৎপুরুষ
সঠিক উত্তর: (খ)
৬৭. ‘রাজপথ’ – এর ব্যাসবাক্য কোনটি?
ক) রাজার পথ
খ) রাজা নির্মিত পথ
গ) রাজাদের পথ
ঘ) পথের রাজা
সঠিক উত্তর: (ঘ)
৬৮. ‘চিরকাল ব্যাপীয়া সুখী = চিরসুখী’ =- এটি কোন সমাসের উদাহরণ?
ক) মধ্যপদলোপী কর্মধারয়
খ) রূপক কর্মধারয়
গ) দ্বিতীয়া তৎপুরুষ
ঘ) বহুব্রীহি
সঠিক উত্তর: (ক)
৬৯. ‘বিরানব্বই’ কোন সমাসের উদাহরণ?
ক) দ্বিগু
খ) সংখ্যাবাচক বহুব্রীহি
গ) অব্যয়ীভাব
ঘ) নিত্য
সঠিক উত্তর: (ঘ)
৭০. দ্বিগু সমাসের উদাহরণ কোনটি?
ক) সাতসমুদ্র
খ) প্রতিদিন
গ) নীলকন্ঠ
ঘ) মুখেভাত
সঠিক উত্তর: (ক)
৭১. ‘তুষারশুভ্র’ – এর সঠিক ব্যাসবাক্য কোনটি?
ক) তুষারের ন্যায় শুভ্র
খ) তুষার শুভ্রের ন্যায়
গ) তুষার ও শুভ্র
ঘ) শুভ্র যে তুষার
সঠিক উত্তর: (ক)
৭২. তৎপুরুষ সমাসে কোন পদ প্রধান?
ক) পূর্বপদ
খ) পরপদ
গ) অন্যপদ
ঘ) উভয়পদ
সঠিক উত্তর: (খ)
৭৩. নিচের কোন সমস্ত পদটি দ্বিগু সমাস?
ক) তেপায়া
খ) চৌচালা
গ) তেমাথা
ঘ) চারহাতি
সঠিক উত্তর: (গ)

বাক্য কাকে বলে? বাক্য কত প্রকার ও কী কী


৭৪. দ্বন্ধ সমাসে পূর্বপদ ও পরপদের সম্বন্ধ বুঝাতে ব্যাসবাক্যে কয়টি অব্যয়পদ ব্যবহৃত হয়?
ক) একটি
খ) দুটি
গ) তিনটি
ঘ) চারটি
সঠিক উত্তর: (গ)
৭৫. কোনটি রূপক কর্মধারয় সমাসের উদাহরণ নয়?
ক) বিষাদসিন্ধু
খ) ক্রোধানল
গ) মনমাঝি
ঘ) তুষারশুভ্র
সঠিক উত্তর: (ঘ)
৭৬. খাঁটি বাংলা উপপদ তৎপুরুষ কোনটি?
ক) মাছিমারা
খ) সত্যবাদী
গ) পাদান
ঘ) নীরদ
সঠিক উত্তর: (ক)
৭৭. ‘প্রতিদ্বন্ধী’ অর্থে অব্যয়ীভাব সমাস কোনটি?
ক) প্রতিবাদ
খ) প্রত্যুত্তর
গ) প্রতিচ্ছবি
ঘ) প্রতিদ্বন্ধী
সঠিক উত্তর: (খ)
৭৮. উপপদ তৎপুরুষ সমাস কোনটি?
ক) পকেটমার
খ) গৃহান্তর
গ) প্রভাত
ঘ) আরক্তিম
সঠিক উত্তর: (ক)
৭৯. ‘বিষাদসিন্ধু’ সমস্তপদটির ব্যাসবাক্য কোনটি?
ক) বিষাদ যেন সিন্ধু
খ) বিষাদ রূপ সিন্ধু
গ) বিষাদ যেমন সিন্ধু
ঘ) বিষাদময় সিন্ধু
সঠিক উত্তর: (খ)
৮০. উপমান কর্মধারয় সমাসের সমস্তপদ কোনটি?
ক) পান্নাসবুজ
খ) বীরসিংহ
গ) কালস্রোত
ঘ) রক্তকমল
সঠিক উত্তর: (ক)
৮১. প্রত্যয়ান্ত বহুব্রীহি সমাস কোনটি?
ক) একঘরে
খ) হাতে খড়ি
গ) গায়ে হলুদ
ঘ) মুখে ভাত
সঠিক উত্তর: (ক)
৮২. ‘জায়া’ শব্দের স্থলে বহুব্রীহি সমাসে কোনটি ব্যবহৃত হয়?
ক) দম
খ) জানি
গ) যুবতী
ঘ) পত্নী
সঠিক উত্তর: (খ)
৮৩. অব্যয়ীভাব সমাসে কোন পদ প্রধান?
ক) ভিন্নপদ
খ) উভয় পদ
গ) পরপদ
ঘ) পূর্বপদ
সঠিক উত্তর: (ঘ)
৮৪. নিচের কোনটি ব্যতিহার বহুব্রীহি সমাসের ব্যাসবাক্য?
ক) ধীর বুদ্ধি যার
খ) নীল যে আকাশ
গ) দশ আনন যার
ঘ) লাঠিতে লাঠিতে যে লড়াই
সঠিক উত্তর: (ঘ)
৮৫. ‘বহুব্রীহি’ শব্দের অর্থ কী?
ক) বহুমুখী
খ) বহুবৃদ্ধি
গ) বহু ধান
ঘ) বহু ধন
সঠিক উত্তর: (গ)
৮৬. ‘মনগড়া’ কোন সমাস?
ক) বহুব্রীহি
খ) কর্মধারয়
গ) তৎপুরুষ
ঘ) দ্বিগু
সঠিক উত্তর: (গ)
৮৭. খাতা-পত্র কোন অর্থে দ্বন্ধ সমাস?
ক) মিলনার্থক
খ) সমার্থক
গ) বিপরীতার্থক
ঘ) বিরোধার্থক
সঠিক উত্তর: (খ)
৮৮. নিচের কোনটি দ্বিগু সমাসের উদাহরণ?
ক) উপজেলা
খ) রাজপথ
গ) শতাব্দী
ঘ) চৌচালা
সঠিক উত্তর: (গ)
৮৯. ‘বালিকা বিদ্যালয়’ কোন সমাস?
ক) সাধারণ কর্মধারয়
খ) ষষ্ঠী তৎপুরুষ
গ) ব্যধিকরণ বহুব্রীহি
ঘ) চতুর্থী তৎপুরুষ
সঠিক উত্তর: (ঘ)
৯০. সাধারণত চ্যুত, জাত, ভীত, গৃহীত অর্থে যে সমাস হয়তার নাম -�
ক) খাঁটি বাংলা তৎপুরুষ
খ) চতুর্থী তৎপুরুষ
গ) তৃতীয়া তৎপুরুষ
ঘ) পঞ্চমী তৎপুরুষ
সঠিক উত্তর: (ঘ)
৯১. ‘মাদক দ্বারা আসক্ত = মাদকাসক্ত’ – এটি কোন সমাস?
ক) তৎপুরুষ
খ) দ্বন্ধ
গ) অব্যয়ীবাব
ঘ) বহুব্রীহি
সঠিক উত্তর: (ক)
৯২. “মহৎমন যার” – এর সঠিক সমাসবদ্ধ পদ কোনটি?
ক) মহামনা
খ) মহৎমনা
গ) মহানমনা
ঘ) মহৎমন
সঠিক উত্তর: (খ)
৯৩. ‘যথাযোগ্য’ – শব্দটি কী অর্থে অব্যয়ীভাব সমাস হয়েছে?
ক) অনিতক্রম্যতা
খ) বিরোধ
গ) সাদৃশ্য
ঘ) পশ্চাৎ
সঠিক উত্তর: (ক)
৯৪. সমাস শব্দের অর্থ কী?
ক) মিলন, সংক্ষেপ ও বিপরীতকরণ
খ) সংক্ষেপ, মিল ও নির্দিষ্টকরণ
গ) সংক্ষেপ, একপদীকরণ ও পদের ধারণা
ঘ) সংক্ষেপ, মিলন ও একপদীকরণ
সঠিক উত্তর: (ঘ)
৯৫. কোনটি নিত্য সমাসের উদাহরণ?
ক) উপনদী
খ) মনমাঝি
গ) নরপশু
ঘ) গ্রমান্তর
সঠিক উত্তর: (ঘ)
৯৬. যেখানে বিশেষণ বা বিশেষণভাবাপন্ন পদের সাথে বিশেষ্য বা বিশেষ্যভাবাপন্ন পদের সমাস হয় এবং পরপদের অর্থই প্রধানরূপে প্রতীয়মান হয়, তাকে কোন সমাস বলে?
ক) দ্বন্ধ সমাস
খ) কর্মধারয় সমাস
গ) তৎপুরুষ সমাস
ঘ) বহুব্রীহি সমাস
সঠিক উত্তর: (খ)
৯৭. কোনটি নিত্য সমাসের সমস্তপদ?
ক) দেশান্তর
খ) সেতার
গ) বেতার
ঘ) সহোদর
সঠিক উত্তর: (ক)
৯৮. ‘জনৈক’ এর সঠিক ব্যাসবাক্য কোনটি?
ক) এক যে জন
খ) জন যে এক
গ) এক এবং জন
ঘ) এক জন পর্যন্ত
সঠিক উত্তর: (খ)
৯৯. ‘স্মৃতিসৌধ’ – কোন সমাসের সমস্তপদ?
ক) কর্মধারয়
খ) দ্বন্ধ
গ) দ্বিগু
ঘ) নিত্য
সঠিক উত্তর: (ক)
১০০. ‘মুখচন্দ্র’ এর ব্যাসবাক্য কোনটি?
ক) মুখ চন্দ্রের ন্যায়
খ) চন্দ্র মুখের ন্যায়
গ) চন্দ্রের ন্যায় মুখ
ঘ) মুখের ন্যায় চন্দ্র
সঠিক উত্তর: (ক)
১০১. দ্বিগু সমাসের উদাহরণ –
ক) তিন কালের সমাহার – ত্রিকাল
খ) দু’দিকে অপ যার = দ্বীপ
গ) একদিকে চোখ যার = একচোখা
ঘ) অক্ষির অগোচরে = পরোক্ষ
সঠিক উত্তর: (ক)
১০২. যে যে পদে সমাস হয় তাদের প্রত্যেকটির নাম কী?
ক) সমস্যমান পদ
খ) ব্যাসবাক্য
গ) সমাসবাক্য
ঘ) নতুন বাক্য
সঠিক উত্তর: (ক)
১০৩. নিত্য সমাসের উদাহরণ কোনটি?
ক) উপনদী
খ) মনমাঝি
গ) নরপশু
ঘ) গ্রামান্তর
সঠিক উত্তর: (ঘ)
১০৪. ‘দা-কুমড়া’ কোন দ্বন্ধ সমাসের উদাহরণ?
ক) বিপরীতার্থক দ্বন্ধ
খ) মিলনার্থক দ্বন্ধ
গ) বিরোধার্থক দ্বন্ধ
ঘ) সমার্থক দ্বন্ধ
সঠিক উত্তর: (গ)
১০৫. কোনটি প্রাদি সমাসের উদাহরণ?
ক) গৃহস্থ
খ) ছা-পোষা
গ) উপকূল
ঘ) প্রগতি
সঠিক উত্তর: (ঘ)
১০৬. কোনটি ব্যধিকরণ বহুব্রীহি সমাসের উদাহরণ?
ক) কোলাকুলি
খ) ঊনপাঁজুরে
গ) হাতেখড়ি
ঘ) কথাসর্বস্ব
সঠিক উত্তর: (ঘ)
১০৭. ‘জনৈক’ কোন সমাসের উদাহরণ?
ক) কর্মধারয়
খ) বহুব্রীহি
গ) অলুক দ্বন্ধ
ঘ) নঞ্ বহুব্রীহি
সঠিক উত্তর: (ক)
১০৮. কুলার আকৃতিবিশিষ্ট কান যে রমণীর = কুলাকানী – কোন সমাস?
ক) মধ্যপদলোপী বহুব্রীহি
খ) দ্বন্ধ সমাস
গ) মধ্যপদলোপী কর্মধারয়
ঘ) নিত্য সমাস
সঠিক উত্তর: (ক)
১০৯. ‘গজনীর রাজা = গজনীরাজ’ এটি কোন সমাসের উদাহরণ?
ক) পঞ্চমী তৎপুরুষ সমাস
খ) ষষ্ঠী তৎপুরুষ সমাস
গ) উপপদ তৎপুরুষ সমাস
ঘ) বহুব্রীহি সমাস
সঠিক উত্তর: (ঘ)
১১০. পূর্বপদ বিশেষণ ও পরপদ বিশেষ্য হলে কেন বহুব্রীহি সমাস হয়?
ক) ব্যধিকরণ
খ) সমানাধিকরণ
গ) প্রত্যয়ান্ত
ঘ) মধ্যপদলোপী
সঠিক উত্তর: (খ)
১১১. ‘গাছপাকা’ কোন সমাস?
ক) ষষ্ঠী তৎপুরুষ
খ) সপ্তমী তৎপুরুষ
গ) চতুর্থী তৎপুরুষ
ঘ) পঞ্চমী তৎপুরুষ
সঠিক উত্তর: (খ)
১১২. ‘অহি-নকুল’ কোন শ্রেণির দ্বন্ধ সমাসের উদাহরণ?
ক) বিরোধার্থক
খ) বিপরীতার্থক
গ) সমার্থক
ঘ) মিলনার্থক
সঠিক উত্তর: (ক)
১১৩. কোনটি প্রাদি ও অব্যয়ীভাব এই উভয় সমাসই হয়?
ক) পরিভ্রমণ
খ) প্রভাব
গ) অতিমানব
ঘ) উদ্বেল
সঠিক উত্তর: (ঘ)
১১৪. ‘বেসুর’ কোন সমাস?
ক) অব্যয়ীভাব
খ) কর্মধারয়
গ) বহুব্রীহি
ঘ) তৎপুরু৯ষ
সঠিক উত্তর: (গ)
১১৫. পূর্বপদে বিভক্তি লোপে কোন সমাস হয়?
ক) অব্যয়ীভাব
খ) তৎপুরুষ
গ) কর্মধারয়
ঘ) দ্বিগু
সঠিক উত্তর: (খ)
১১৬. ‘অভাব’ অর্থে অব্যয়ীভাব সমাসের উদাহরণ কোনটি?
ক) নির্ভাবনা
খ) উচ্ছৃঙ্খল
গ) অনুক্ষণ
ঘ) প্রতিপক্ষ
সঠিক উত্তর: (ক)
১১৭. ‘উপশহর’ কোন সমাসের উদাহরণ?
ক) বহুব্রীহি
খ) প্রাদি
গ) অব্যয়ীভাব
ঘ) নিত্য সমাস
সঠিক উত্তর: (গ)
১১৮. সমাসবদ্ধ বা সমাসনিষ্পন্ন পদটির নাম কী?
ক) ব্যাসবাক্য
খ) বিগ্রহবাক্য
গ) সমস্যমান পদ
ঘ) সমস্তপদ
সঠিক উত্তর: (ঘ)

১১৯. ক্রিয়ার পারস্পরিক অর্থে কোন বহুব্রীহি সমাস হয়?
ক) সমানাধিকরণ বহুব্রীহি
খ) ব্যতিহার বহুব্রীহি
গ) ব্যধিকরণ বহুব্রীহি
ঘ) প্রত্যয়ান্ত বহুব্রীহি
সঠিক উত্তর: (খ)
১২০. ‘দশানন’ সমস্তপদটির সঠিক ব্যাসবাক্য কোনটি?
ক) দশ ও আনন
খ) দশ সংখ্যক আনন
গ) দশ আননের সমাহার
ঘ) দশ আনন আছে যার
সঠিক উত্তর: (ঘ)
১২১. বিশেষণের সাথে বিশেষ্যের যে সমাস হয়, তাকে কী বলে?
ক) দ্বন্ধ
খ) বহুব্রীহি
গ) তৎপুরুষ
ঘ) কর্মধারয়
সঠিক উত্তর: (ঘ)
১২২. ‘স্মৃতিসৌধ’ কোন কর্মধারয় সমাস?
ক) মধ্যপদলোপী কর্মধারয়
খ) উপমান কর্মধারয়
গ) রূপক কর্মধারয়
ঘ) উপমিত কর্মধারয়
সঠিক উত্তর: (ক)
১২৩. সমাসের সাথে কোনটির কিছুটা মিল আছে?
ক) কারক
খ) ধাতু
গ) প্রকৃতি
ঘ) সন্ধি
সঠিক উত্তর: (ঘ)
১২৪. ব্যাপ্তি অর্থে কোন সমাস হয়?
ক) ২য়া তৎপুরুষ
খ) তৃতীয়া তৎপুরুষ
গ) ৫মী তৎপুরুষ
ঘ) ৬ষ্ঠী তৎপুরুষ
সঠিক উত্তর: (ক)
১২৫. ‘মেহেদীরাঙা’ – এর সঠিক ব্যাসবাক্য কোনটি?
ক) রাঙা যে মেহেদী
খ) মেহেদী যে রাঙা
গ) মেহেদী ও রাঙা
ঘ) মেহেদী রূপ রাঙা
সঠিক উত্তর: (ঘ)
১২৬. ‘পকেটমার’ কোন তৎপুরুষ সমাসের উদাহরণ?
ক) অলুক তৎপুরুষ
খ) উপপদ তৎপুরুষ
গ) সপ্তমী তৎপুরুষ
ঘ) তৃতীয়া তৎপুরুষ
সঠিক উত্তর: (খ)
১২৭. ‘সামীপ্যে’ অর্থে কোথায় অব্যয়ীভাব সমাস হয়েছে?
ক) উপকূল
খ) আগত
গ) গরমিল
ঘ) উপদ্বীপ
সঠিক উত্তর: (ক)
১২৮. সমপ্তপদকে ভেঙে যে বাক্যাংশ করা হয় তার নাম কী?
ক) সরলবাক্য
খ) মিশ্রবাক্য
গ) ব্যাসবাক্য
ঘ) জটিলবাক্য
সঠিক উত্তর: (গ)
১২৯. উপমান কর্মধারয় সমাস কোনটি?
ক) মুখচন্দ্র
খ) ক্রোধানল
গ) তুষারশুভ্র
ঘ) মনমাঝি
সঠিক উত্তর: (গ)
১৩০. কোন সমাসে সাধারণ ধর্মের উল্লেখ থাকে?
ক) উপমান কর্মধারয়
খ) উপমিত কর্মধারয়
গ) রূপক কর্মধারয়
ঘ) মধ্যপদলোপী কর্মধারয়
সঠিক উত্তর: (ক)
১৩১. ‘বিপদাপন্ন’ সমস্তপদটি কোন সমাসের উদাহরণ?
ক) অলুক দ্বন্ধ
খ) দ্বিতীয়া তৎপুরুষ
গ) তৃতীয়া তৎপুরুষ
ঘ) চতুর্থী তৎপুরুষ
সঠিক উত্তর: (খ)
১৩২. কোনটি অব্যয়ীভাব সমাসের উদাহরণ?
ক) আমৃত্যু
খ) দর্শনমাত্র
গ) জীবন্মৃত
ঘ) সফল
সঠিক উত্তর: (ক)
১৩৩. ‘সমাস’ শব্দের অর্থ কী?
ক) বিশ্লেষণ
খ) সংক্ষেপণ
গ) সংযোজন
ঘ) সংশ্লেষণ
সঠিক উত্তর: (খ)
১৩৪. কোনটি মধ্যপদলোপী কর্মধারয় সমাসের উদাহরণ?
ক) শিশু সাহিত্য
খ) সাহিত্য সভা
গ) অরুণ রাঙ্গা
ঘ) সকাল সন্ধ্যা
সঠিক উত্তর: (খ)
১৩৫. ‘সুকাজ’ শব্দটির ‘সু’ কোন প্রকার উপসর্গ?
ক) হিন্দি
খ) তৎসম
গ) আরবি
ঘ) খাঁটি বাংলা
সঠিক উত্তর: (ঘ)
১৩৬. ‘অকেজো’ সমস্তপদটি কোন সমাসেরউদাহরণ?
ক) নঞ্ তৎপুরুষ
খ) নঞ্ বহুব্রীহি
গ) প্রত্যয়ান্ত বহুব্রীহি
ঘ) সবগুলো সঠিক
সঠিক উত্তর: (ঘ)
১৩৭. ‘মহাকীর্ত’ – এর সঠিক ব্যাসবাক্য কোনটি?
ক) মহান যে কীর্তি
খ) মহা যে কীর্তি
গ) মহতী যে কীর্তি
ঘ) মহা কীর্তি যার
সঠিক উত্তর: (গ)
১৩৮. বহুব্রীহি সমাসের নিষ্পন্ন পদটি কোন পদ প্রধান?
ক) পূর্বপদ
খ) অন্যপদ
গ) পরপদ
ঘ) উভয়পদ
সঠিক উত্তর: (খ)
১৩৯. বহুব্রীহি কত প্রকার?
ক) ৮
খ) ৯
গ) ৬
ঘ) ৭
সঠিক উত্তর: (ক)
১৪০. কৃদন্ত পদের সাথে উপপদের যে সমাস হয় তার নাম কী?
ক) অলুক তৎপুরুষ
খ) উপপদ তৎপুরুষ
গ) নিত্য সমাস
ঘ) নঞ্ তৎপুরুষ
সঠিক উত্তর: (খ)
১৪১. কোন সমাসে ‘সমাহার’ ব্যাসবাক্য থাকে?
ক) দ্বন্ধ
খ) প্রাদি
গ) নিত্য
ঘ) দ্বিগু
সঠিক উত্তর: (ঘ)
১৪২. ‘পদ্ম নাভিতে যার = পদ্মনাভ’ – এটি কোন সমাস?
ক) কর্মধারয়
খ) তৎপুরুষ
গ) বহুব্রীহি
ঘ) দ্বিগু
সঠিক উত্তর: (গ)
১৪৩. জমা-খরচ কোন শব্দযোগে দ্বন্ধ সমাস?
ক) সমার্থক
খ) বিরোধার্থক
গ) বিপরীতার্থক
ঘ) মিলনার্থক
সঠিক উত্তর: (গ)
১৪৪. ‘জমা-খরচ’ এর সঠিক ব্যাসবাক্য কোনটি?
ক) জমার খরচ
খ) জমাকে খরচ
গ) জমা ও খরচ
ঘ) জমা হতে খরচ
সঠিক উত্তর: (গ)
১৪৫. ‘মহানবি’ শব্দটি কোন সমাস?
ক) তৎপুরুষ
খ) অব্যয়ীভাব
গ) বহুব্রীহি
ঘ) কর্মধারয়
সঠিক উত্তর: (ঘ)
১৪৬. ‘ছাগদুগ্ধ’ এ সমস্তপদটির সঠিক ব্যাসবাক্য কোনটি?
ক) ছাগের দুগ্ধ
খ) ছাগ ও দুগ্ধ
গ) ছাগী হতে দুগ্ধ
ঘ) ছাগীর দুগ্ধ
সঠিক উত্তর: (ঘ)
১৪৭. উপমান কর্মধারয় সমাস কাকে বলে?
ক) দৃশ্যমান বস্তুর সাথে অদৃশ্যমান বস্তুর মিল থাকলে
খ) অদৃশ্য বস্তুর সাথে দৃশ্যমান বস্তুর মিল থাকলে
গ) সাধারণ গুণের উল্লেখ থাকলে
ঘ) দুটি বিশেষ পদের একটিকে বুঝায়
সঠিক উত্তর: (ক)

আমাদের পোষ্ট গুলো প্রতিনিয়ত আপডেট করা হয়। বিসিএস,প্রাইমারি সহ সব পরীক্ষার প্রতিনিয়ত প্রশ্ন অনুযায়ী পোষ্ট গুলো আমরা আপডেট করি। সবার জন্য শুভ কামনা রইলো।

এতক্ষন আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *